মুখ খুললেন অনির্বাণ কাজী – এ আর রহমান গানটাকে অপব্যবহার করল

গানটাকে কী রকম একটা করে দিয়েছে! একটা গ্রামীণ সংগীতের মতো, ভাটিয়ালির মতো করে দিয়েছে। অনেকটা সস্তা করে দিয়েছে।’

31

‘মা গানটা অনুমতি দিয়েছিলেন গানটার সুর এবং কথা না বদলে রিক্রিয়েট করার জন্য। কিন্তু, সেই সময় বলা হয়েছিল, গানটা ওরা নিজেদের মতো করে ব্যবহার করতে চায়। এরপর গানটা হয়ে গেলে মা একবার শোনাতে বলেছিলেন। ২০২১ সালে মা অনুমতি দেন। কিন্তু, এরপর আর ওরা শোনাননি। মা মারা যান। দাদুর গান যদি এ আর রহমান ইনস্ট্রুমেন্টালি নতুনভাবে উপস্থাপন করেন সেক্ষেত্রে বিশ্বব্যাপী গানের প্রচার হতো, এটা মা ভেবেছিলেন। কিন্তু, ওরা গানটাকে অপব্যবহার করল।’

ভারতীয় গণমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে কথাগুলো বলছিলেন কাজী নজরুল ইসলামের নাতি অনির্বাণ কাজী। সাক্ষাৎকারে তিনি জানান, পুরো নজরুল পরিবার গানটি শুনে কষ্ট পেয়েছে এবং একই সঙ্গে ক্ষুব্ধও হয়েছে।

কাজী নজরুল ইসলামের কারার ও ‘কারার ওই লৌহ কপাট’ গানটি নতুন করে তৈরি করেছেন অস্কারজয়ী সংগীতজ্ঞ এ আর রহমান। একটি ওয়েবফিল্মের জন্য এই গান করা হয়। আর এ গান নিয়ে ইতোমধ্যে বাঙালিদের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘গানটার সুর বদল করাতে আমাদের প্রবল আপত্তি। এ আর রহমানকে পূর্ণ শ্রদ্ধা জানিয়েই বলছি, তাঁকে সুর বিকৃত করার অধিকার কে দিলেন আমি জানি না। স্বত্ব দেওয়ার সময় সুর বদলের কথা বলা হয়নি। একটা এগ্রিমেন্ট ওরা পাঠিয়েছিলেন। তাতে এসব লেখা ছিল।’

এই গানকে অত্যন্ত ‘বাজে ভাবে’ উপস্থাপিত করা হয়েছে, জানান কাজী নজরুল ইসলামের নাতি। এই গানের আবেগ সঠিকভাবে এ আর রহমানের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়নি, মনে করছেন অনির্বাণ।

তিনি বলেন, ‘একতারা না তানপুরা দিয়ে গানটা শুরু করেছেন। এটা গানের মুডই নয়। সিনেমাটা দেখছিলাম। গানটা একেবার উপযুক্ত ছিল। আমার মনে হয় না এ আর রহমানের টিম তাঁকে বোঝাননি যে গানটার আবেগটা ঠিক কী! এই গানটাকে কী রকম একটা করে দিয়েছে! একটা গ্রামীণ সংগীতের মতো, ভাটিয়ালির মতো করে দিয়েছে। অনেকটা সস্তা করে দিয়েছে।’

সুত্র:সাবা 

এই বিভাগের আরও সংবাদ